ব্রেকিং নিউজ :
নীলফামারীতে মাসব্যাপী পুনাকের তাঁত শিল্প মেলা শুরু প্রধানমন্ত্রীর কাছে বুয়েট ছাত্রলীগের নেতা আরিফ রায়হান দীপ হত্যার বিচার চাইলেন দীপের বাবা লিসবনে বাংলাদেশ দূতাবাসের চ্যান্সারি ভবন উদ্বোধন করলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী রপ্তানি বৃদ্ধির মাধ্যমে কৃষিকে আরও সমৃদ্ধ করতে হবে : কৃষিমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুর আদর্শে শিশুদের গড়তে অভিভাবকদের প্রতি ঢাবি উপাচার্যের আহ্বান গ্রিসে বিশেষ প্রদর্শনীতে ‘হাসিনা: এ ডটারস টেল’ করোনায় আরও ৬ জনের মৃত্যু দুর্যোগ মোকাবেলায় সরকারের মহাপরিকল্পনা রয়েছে : পরিকল্পনামন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী’র জেল জীবন নিয়ে লেখা ‘দেয়াল দিয়ে ঘেরা’ বইটির পুনঃপ্রকাশ কাল থেকে সুপ্রিমকোর্ট ছুটি : অবকাশকালীন বিচারকার্যে হাইকোর্টে ৯ বেঞ্চ
  • আপডেট টাইম : 16/06/2022 10:34 PM
  • 13 বার পঠিত

সংবিধানে সন্নিবেশিত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ মার্চের ভাষণে শতাধিক ভুল পেয়েছে হাইকোর্টের নির্দেশে গঠিত উচ্চ পর্যায়ের একটি কমিটি। হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় আইন মন্ত্রণালয় থেকে এই প্রতিবেদন দাখিল করা হয়েছে। বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি খিজির হায়াত সমন্বয়ে গঠিত একটি হাইকোর্ট ডিভিশন বেঞ্চে এ বিষয়ে শুনানি হওয়ার কথা রয়েছে।
রিটকারী আইনজীবী এডভোকেট সুবীর নন্দী দাস বিষয়টি নিশ্চিত করে বাসস'কে বলেন, বঙ্গবন্ধু ৭ মার্চে যে ঐতিহাসিক ভাষণ দিয়েছেন- সংবিধানে তা হুবহু দেয়া হয়নি। সংবিধানে সন্নিবেশিত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ মার্চের ভাষণে শতাধিক ভুল পেয়েছে হাইকোর্টের নির্দেশে গঠিত উচ্চ পর্যায়ের একটি কমিটি।
২০২০ সালের ১০ মার্চ সংবিধানে বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ ভুলভাবে সন্নিবেশিত হয়েছে কি-না, তা যাচাই করতে একটি উচ্চক্ষমতা সম্পন্ন কমিটি গঠনের নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। ৭ মার্চের ভাষণের সময় উপস্থিত থাকা ব্যক্তিসহ বিশিষ্টজনদের এ কমিটিতে রাখতে বলা হয়েছিল। এছাড়া সংবিধানের পঞ্চম তফসিলে থাকা ভাষণের সঙ্গে এ সংক্রান্ত সকল অডিও-ভিডিও পর্যালোচনা করে, একটি প্রতিবেদনও আদালতে দাখিল করতে বলা হয়। একইসঙ্গে সংবিধানে বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের সঠিক ভাষণ কেন অন্তর্ভুক্ত করা হবে না, তা জানতে চেয়ে ৪ সপ্তাহের রুল জারি করেন হাইকোর্ট।
২০২০ সালের ৫ মার্চ হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় সুপ্রিমকোর্টের আইনজীবী সুবীর নন্দী দাস এ রিট দায়ের করেন। রাজবাড়ীর রায়নগর গ্রামের কাশেদ আলীর পক্ষে তিনি এ রিটটি দায়ের করা হয়। রিটে সংবিধানে থাকা বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণের ভুলটি কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারির আর্জি জানানো হয়। পাশাপাশি সংবিধানে বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের পূর্ণাঙ্গ ভাষণটি বাংলা ও ইংরেজিতে অন্তর্ভুক্তি চাওয়া হয়। রিটে আইন মন্ত্রণালয়ের সচিব এবং চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদপ্তরের পরিচালকসহ সংশ্লিষ্টদের বিবাদী (রেসপনডেন্ট) করা হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
ফেসবুকে আমরা...